ঢাকাবুধবার , ২০শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আবহাওয়া
  3. আর্ন্তজাতিক
  4. ইসলামী জীবন
  5. করোনা আপডেট
  6. খেলাধুলা
  7. চাকরি-বাকরি
  8. জাতীয়
  9. দূর্ঘটনা
  10. নাগরিক সংবাদ
  11. পাঁচমিশালি
  12. প্রচ্ছেদ
  13. বরিশাল বিভাগ
  14. বাংলাদেশ
  15. বিনোদন
আজকের সর্বশেষ সবখবর

৬৫ দিন অবরোধ না যেতে নিম্নচাপ হাজির কুল প্রান্তে ফিরে এসেছে জেলেদের দল।

Link Copied!

এবছর জেলেদের সমস্যা জানো পিছু ছাড়ছে না, একদিকে মহামারী করোনাভাইরাস তার মধ্যে ৬৫ দিন অবরোধ পেরিয়ে না যেতেই নিম্নচাপের আসংখ্যা বঙ্গোপসাগরে। এজেনো জেলেদের মরার উপায় খরার খা।
নিন্মচাপের কারনে বঙ্গোপসাগর উত্তাল হয়ে উঠেছে। সাগেরে বড় বড় ঢেউ তীরে আচঁড়ে পড়ছে। সৃষ্ট বৈরী আবহাওয়ার ফলে কুয়াকাটাসহ সমুদ্র উপক‚লীয় এলাকায় গত ৩’দিন ধরে থেমে থেমে বৃষ্টিপাত ও দমকা হওয়া বইছে। রবিবার সকাল থেকে বাতাসের গতিবেগ বেড়ে যাওয়ায় জেলেরা গভীর সমুদ্রে মাছ ধরা বন্ধ করে প্রেতাশ্রয়ে ফিরতে শুরু করেছে। ইতোমধ্যে মৎস্য বন্দর আলীপুর-মহিপুরের ও কুয়াকাটা, শিববাড়িয়া নদীতে শত শত ট্রলার নিরাপদ আশ্রয় নিয়েছে।
খেপুপাড়া রাডার ষ্টেশন সূত্রে জানা গেছে,সমুদ্রে নিন্মচাপের কারনে বৈরী আবহাওয়ার সৃষ্টি হয়েছে। তবে পায়রা সমুদ্র বন্দরে কয়েকদিন ধরে তিন নম্বার স্থানীয় সতর্ক সংকেত অব্যাহত থাকায় সকল প্রকার মাছ ধরা ট্রলার গুলোকে পরবর্তী সংকেত না দেয়া পর্যন্ত নিরাপদে থাকতে বলা হয়েছে।
জেলেদের সূত্রে জানা গেছে,ইলিশ প্রজনন রক্ষায় ৬৫ দিনের অবরোধের পর গত দু’সপ্তাহ আগে জেলেরা সমুদ্রে ইলিশ শিকারে গিয়ে কম-বেশী সকল জেলেরা ইলিশ শিকারে সক্ষম হয়েছে। তবে অন্যান্য বছরের তুলনায় এবছর অপেক্ষাকৃত বড় বড় সাইজের ইলিশ ধরা পড়ছে। ইলিশ ধরা পড়লেও হাজার হাজার জেলেরা সমুদ্রে থাকা অবস্থায় বাঁধ সাধে প্রতিক‚ল আবহাওয়া। ক্রমান্বয়ে সাগর উত্তাল হতে থাকায় প্রচন্ড ঢেউয়ের তোড়ে টিকতে না পেরে নিরাপদ আশ্রয়ে তীরে ফিরেছে এসব জেলেরা। এদিকে,আবহাওয়া খারাপের কারনে মাছ না থাকায় ব্যাবসা বানিজ্যে ঘাটতি দেখা দিয়েছে। তবে আবহাওয়ার উন্নয়ন হলে এবছর ভাল সাইজের ইলিশ মিলবে বলে একাধিক ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন।
এ বিষয়ে জেলেদের সাথে কথা হলে, এর মধ্যে কুয়াকাটার খুটা জেলে মোহাম্মদ আমির পহলান বলেন, আজকে যখন সাগরে মাছ ধরার শিকারে যাই হঠাৎ সাগর উত্তাল হয়ে পড়ে, যাবার পথেই অতিরিক্ত স্রোতের চাপে হাতের চুকান ভেঙে আমি সাগরে পড়ে যাই, আল্লাহর রহমতে কুল প্রান্তে ফিরে এসেছি, এবং তিনি আরো জানান বৈরী আবহাওয়ার মধ্যে নিজেদের সংসার টিকিয়ে রাখতে ,এবং মহাজনের টাকা পরিশোধ করতে, নিজের জীবন বাজি রেখে গভীর সমুদ্রে মাছ শিকার করতে যেতে হচ্ছে, কারন অনেকদিন যাবত মাছ ধরা বন্ধ থাকায় অনেক লোকসানের মধ্যে রয়েছি।

গভীর সমুদ্রে  যাওয়া জেলে মোঃ জাহাঙ্গীর মাঝি বলেন, কুয়াকাটা থেকে অন্ততঃ ৪০ কিলোমিটার গভীরে সাগরে মাছ ধরা অবস্থায় সমুদ্র উত্তাল হয়ে ওঠে। তারা সমুদ্রে টিকতে না পেরে জাল গুছিয়ে আলীপুর-মহিপুর বন্দরে নিরাপদ আশ্রয়ে ফিরেছেন।
জেলে মো: রশিদ মাঝি বলেন, কেবল ইলিশ ধরা পড়তে শুরু করেছে। এ অবস্থায় সাগর উত্তাল হয়ে উঠেছে। তারা ৮ জন জেলে ট্রলার নিয়ে মৎস্য অবতরণ কেন্দ্রে আশ্রয় নিয়েছেন।
কুয়াকাটা আল্লাহর দান মৎস্য। আড়ৎদের পরিচালক মোঃ রুবেল ব্যাপারি জানান, যে এবছরের বিপদ জানো জেলেদের পিছু ছাড়ছে না, একদিকে মহামারী করোনাভাইরাসের থাবা তারপরে ৬৫ দিনের অবরোধ শেষ হতে না হতে, সমুদ্র সৈকত ভয়ঙ্কর রূপ হয়ে উঠেছে ।এ সমস্যার কারণে ক্ষতির লোকসান গুনতে হচ্ছে মৎস্য আড়ৎদ ব্যবসায়ী ও জেলেদের।
কুয়াকাটা আশার আলো মৎস্যজীবী জেলে সমিতির সভাপতি মো: নিজাম শেখ বলেন, ইতিমধ্যেই আমাদের কুয়াকাটা জেলে সমিতির একজন সদস্য মোশারফ মাঝির টলার মাছ শিকার অবস্থায় ডুবে যায় আল্লাহর রহমতে পাশাপাশি অন্য নৌকার সহযোগিতায় ট্রলার ছেড়ে দিয়ে ৪ জন মানুষকে গন্তব্য স্থানে নিয়ে আসে।

আলীপুর ও কুয়াকাটা মৎস্য আড়ৎদার সমবায় সমিতির সভাপতি মোঃ আনসার উদ্দিন মোল্লা বলেন, বর্তমানে সাগর উত্তাল রয়েছে। সব ট্রলারই এখন ঘাটে রয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত সাগরে বড়   কোন দূর্ঘটনা ঘটেনি বলে তিনি জানিয়েছেন।

জাহিদুল ইসলাম জাহিদ ।
কুয়াকাটা- পটুয়াখালী প্রতিনিধি।
০১৭৬৫৩৮৮৮১৪

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।