ঢাকামঙ্গলবার , ১৯শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আবহাওয়া
  3. আর্ন্তজাতিক
  4. ইসলামী জীবন
  5. করোনা আপডেট
  6. খেলাধুলা
  7. চাকরি-বাকরি
  8. জাতীয়
  9. দূর্ঘটনা
  10. নাগরিক সংবাদ
  11. পাঁচমিশালি
  12. প্রচ্ছেদ
  13. বরিশাল বিভাগ
  14. বাংলাদেশ
  15. বিনোদন
আজকের সর্বশেষ সবখবর

সুন্দরীকে বিয়ে করতে ব্যর্থ হওয়াই গরু চুরির অপবাদে অমানবিক নির্যাতন করল চেয়ারম্যান

এইচ মনছুর আলম কক্সবাজার
আগস্ট ২৩, ২০২০ ৬:০৯ অপরাহ্ণ
Link Copied!

কক্সবাজারের চকরিয়ায় হারবাং ইউনিয়নের পহরচাঁদা এলাকায় সুন্দরী মেয়েকে বিয়ে করতে ব্যর্থ হওয়াই চেয়ারম্যানের ষড়যন্ত্র শিকার হল দুই নারী। বয়স্ক মা এবং তরুণী মেয়ের গরু চোরির ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সোশ্যাল মিডিয়াতে লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়াচ্ছে দিনের দিন নেওয়া হয়নি কোনো ব্যবস্থা। জানা গেছে গত শুক্রবার (২১ আগস্ট) দুপুর ২ টার দিকে কক্সবাজারের চকরিয়া হারবাং ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে চলা হয় এক অমানবিক নির্যাতন প্রথম দফা। পরে আবারো চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে চৌকিদার (গ্রাম পুলিশ) তাদেরকে রশিতে বেঁধে রাস্তায় টেনে টেনে নিয়ে যায় তার কার্যালয়ে সেইখানে আবারো নির্মমভাবে নির্যাতন করেন ঐ হারবাং ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যান মিরানুল ইসলাম। এ বিষয়ে চকরিয়া থানার হারবাং তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক আমিনুল ইসলাম গণমাধ্যমকে জানান, শুক্রবার স্থানীয়রা ফাঁড়িতে খবর দিলে আমরা ফোর্স পাঠাই। আমাদের ফোর্স গিয়ে গুরুতর অবস্থায় মা-মেয়েকে উদ্ধার করে নিজেদের হেফাজতে নিয়ে আসে। আমরা তাদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছি। তিনি আরও জানান, স্থানীয় এক ব্যক্তির দায়ের করা গরু চুরির মামলায় তাদের অভিযুক্ত করা হয়েছে। অভিযুক্তদের মধ্যে মা-মেয়েসহ ৪ জনের বাড়ি পটিয়ার শান্তির হাটে। অপরজনের বাড়ি পেকুয়া লালব্রিজ এলাকায়। তবে তাদের সঠিক পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি। হারবাং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মিরানুল ইসলামের তত্ত্বাবধানে তাদের উপর নির্যাতন হয়েছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এমন অভিযোগ কেউ করেনি। আমাদের ফোর্স যখন ঘটনাস্থলে যায় তখন সেখানে প্রায় দুই শতাধিক মানুষ উপস্থিত ছিলেন। আগে বিপদাপন্ন মা-মেয়েকে আমাদের হেফাজতে নিয়ে আসাটাকেই প্রাধান্য দিয়েছি। কী হয়েছে তা তখন জানতে চাইনি। আর ভুক্তভোগী কিংবা অন্য কেউ এখনও অভিযোগ করেনি। লিখিত অভিযোগ তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে’। তবে ঘটনার একাধিক প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, একদফা মা-মেয়ের ওপর নির্যাতন চলার পর হারবাং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান মিরানুল ইসলাম চৌকিদার (গ্রাম পুলিশ) পাঠিয়ে তাদেরকে রশিতে বেঁধে তার কার্যালয়ে এনে আবার নির্মমভাবে নির্যাতন করেন। উপর্যুপরি নির্যাতন শেষে চেয়ারম্যানের লোকেরাই তদন্তকেন্দ্রে ফোন করে মা-মেয়েকে মুমূর্ষু অবস্থায় তুলে দেন পুলিশের হাতে তুলে দেন। অসমর্থিত একটি সূত্রে জানা যায়, সুন্দরি মেয়েকে বিয়ে করতে চেয়ে ব্যর্থ হয়ে চোরের অপবাদে পরিবারটিকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নিপীড়ন করা হয়েছে। হারবাং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মিরানুল ইসলামের কাছে অভিযোগ সম্পর্কে জানতে মুঠোফোনে যোগযোগ করা হলে মোবাইল নম্বরটি বন্ধ পাওয়া যায়। চকরিয়া থানার ওসি মো. হাবিবুর রহমানও ফোন না ধরায় ঘটনার বিষয়ে কী ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে তা জানা সম্ভব হয়নি। কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. ইকবাল হোসাইন জানান, বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখার পর তাদের বিষয়ে খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা নিতে চকরিয়া থানাকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।