ঢাকাসোমবার , ৬ই ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আবহাওয়া
  3. আমাদের পরিবার
  4. আর্ন্তজাতিক
  5. ইসলামী জীবন
  6. করোনা আপডেট
  7. খেলাধুলা
  8. চাকরি-বাকরি
  9. জাতীয়
  10. নাগরিক সংবাদ
  11. পাঁচমিশালি
  12. বরিশাল বিভাগ
  13. বাংলাদেশ
  14. বিনোদন
  15. বিশ্ব সংবাদ
আজকের সর্বশেষ সবখবর

নাগরপুরে টমেটোর বাম্পার ফলন; কৃষকরা অনেক লাভবান

সাইফুল ইসলাম, টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃ
জানুয়ারি ৯, ২০২১ ১২:৩২ অপরাহ্ণ
Link Copied!

টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃ টাঙ্গাইলের নাগরপুর উপজেলার পূর্বাঞ্চলের গ্রামগুলোতে টমেটো ফসলের বাম্পার ফলন হয়েছে। টমেটোর দাম অনেক ভালো পাওয়া যাচ্ছে বাজারে; ফলে কৃষকের মুখের হাসি ফুটে উঠেছে।

নাগরপুর উপজেলার প্রায় প্রতিটি ইউনিয়নে টমেটোর চাষ হলেও চাষীরা বাণিজ্যিকভাবে চাষ করেন মোকনা ইউনিয়নের গ্রামগুলোতে। ইউনিয়নের বেটুয়াজানী ও লাড় নামক দুটি গ্রামে সব থেকে ভাল জাতের উচ্চফলনশীল টমেটোর চাষ হয়ে থাকে।

অন্যান্য ফসলের চেয়ে টমেটোর চাষ লাভজনক হওয়ার পাশাপাশি একইসাথে সাথী ফসল হিসেবে অন্য ফসলও উৎপাদন হওয়ায় গ্রামের চাষীরা টমেটো চাষকে তাঁদের অন্যতম পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছেন।

মৌসুমের শুরুর দিকে হওয়ায় এবং উচ্চফলনশীল হওয়ায় দুটো বেশি পয়সা বেশী রোজগার করছেন কৃষকরা। ধলেশ্বরী শেখ হাসিনা ‘সেতুর কুল’ ঘেষে দিগন্তজোড়া টমেটো আর টমেটো। যেদিকে চোখ যায় শুধু সবুজের সমারোহ চোখে পড়ে।

নাগরপুর উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর সূত্রে জানা যায়,”ধলেশ্বরী চরে প্রায় ৯০০ বিঘা জমিতে টমেটো চাষ হয়েছে। আর এ বছর আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে ৪০০০ মেট্রিক টন টমেটো উৎপাদন হতে পারে।”

শ্রমিক, বাঁশ, চারা, সার ও কীটনাশক বাবদ খরচ হয়েছে এক বিঘা জমিতে প্রায় ১ লাখ টাকা। বর্তমানে প্রতি বিঘায় মৌসুমের শুরুর দিকে হওয়ায় বাজারে এখন ১ হাজার ৬০০ টাকা মণ দরে টমেটো বিক্রি হচ্ছে।

টমেটো চাষী জুয়েল বলেন, “এবার এক বিঘা জমিতে টমেটো চাষ করেছি। এতে ২৫ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। কিছুদিন ধরে টমেটো বিক্রি শুরু হয়েছে। বাজারে এখন দাম খুব ভালো। এখন পর্যন্ত পাঁচ হাজার টাকার টমেটো বিক্রি করেছি। জমিতে যে পরিমাণ টমেটো রয়েছে তা আরও প্রায় ৫০ হাজার টাকায় বিক্রি করতে পারবো। আর এতে সব খরচ বাদ দিয়ে ২০ হাজার টাকা লাভ হবে বলে আশা করছি।”

নাগরপুরের অন্যান্য টমেটো চাষিরা জানান, “অন্যান্য ফসলের চেয়ে টমেটো চাষ লাভজনক ও সাথী ফসল হিসেবে একই সাথে বরবটি,পটল,মুলা,শীম,লাল শাক সহ বেশকিছু সবজি উৎপাদন করা সম্ভব।”

এছাড়াও আরও জানা যায়, “নাগরপুর উপজেলার কৃষি কর্মকর্তাগণ কৃষকদেরকে বিভিন্ন সময়ে পরার্মশ প্রদান করায় তারা আগ্রহ পায়। এছাড়া বিভিন্ন ওষুধ কোম্পানির মাঠ পর্যায়ের কর্মীগণও তাদেরকে সাহায্য করেন।”

নাগরপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আব্দুল মতিন বিশ্বাস বলেন, “উপজেলার কৃষি অফিস থেকে টমেটো চাষীদের সব সময় পর্যবেক্ষন ও পরামর্শ প্রদান করা হচ্ছে এবং আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এবার টমেটোর বাম্পার ফলন হবে আশা করছি। ”

উল্লেখ্য যে, এ বছর বাজারে টমেটো মৌসুমের শুরুর দিকে হওয়ায় লাভবান হচ্ছেন কৃষকরা। টমেটো ফসল প্রতি বিঘায় একজন চাষি খরচ বাদে ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকা লাভ করতে পারবেন।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।